বিধ্বস্ত বিমানের পাইলটকে নিয়ে যা বললো ইউএস বাংলা

নেপালের কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত উড়োজাহাজটির প্রধান বৈমানিক নিহত আবিদ সুলতানের বিমান চালনার দক্ষতার বিষয়ে কথা বলেছে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স। ইউএস বাংলার জনসংযোগ শাখার মহাব্যবস্থাপক কামরুল ইসলাম জানান, আবিদ সুলতান এর আগে নেপালের কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে একশ’টির মতো বিমান অবতরণ করেছেন। সুতরাং তার দক্ষতা নিয়ে কোন প্রশ্ন নাই।

 

তিনি বলেন, ওই বিমানবন্দরে এর আগে বিভিন্ন বিমান সংস্থার ৭০টির মতো বিমান দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে। কেন এ বিমানবন্দরে এত দুর্ঘটনা ঘটছে তার সুষ্ঠু তদন্ত চাই আমরা।

 

 

রাজধানীর বারিধারায় ইউএস বাংলার অফিসে আনুষ্ঠানিক এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। পাইলটকে জোর করে বিমান পরিচালনা করা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, কিছু গণমাধ্যমে বলা হচ্ছে পাইলটকে দিয়ে জোরপূর্বকভাবে বিমান চালনা করা হয়েছে যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। তিনি বলেন, এই বিমানটি এর আগেও সৈয়দপুরে দুর্ঘটনার কবলে পড়েছিল বলে যে তথ্য প্রকাশ করা হচ্ছে তাও মিথ্যা।

দুর্ঘটনার বিষয়ে তিনি বলেন, পাইলট ককপিটে বসেও যদি দ্বিধাদ্বন্দ্বে থাকেন তাহলে ফ্লাই না-ও করতে পারেন। এ বিষয়ে তাকে জোর করে বিমান চালনায় বাধ্য করার ক্ষমতা কারও নাই।

কাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করে তিনি বলেন, এটিসির মিসগাইড থাকতে পারে। ক্যাপ্টেন আবিদ এই এয়ারক্রাফট ১৭ ঘণ্টা ফ্লাই করেছেন। বাংলাদেশের এভিয়েশনে তিনি ৫ হাজার ঘণ্টার বেশি ফ্লাই করেছেন। আর কাঠমান্ডুর বিমানবন্দরটিতে শতাধিকবার ল্যান্ড করেছেন। সুতরাং এই বিমান বা বিমানবন্দর তার কাছে নতুন কিছু না।

তিনি বলেন, এই বিমানবন্দরে ৭০টির মতো দুর্ঘটনা ঘটেছে। সুতরা এ দুর্ঘটনা নতুন কিছু না। কার গাফিলতিতে এতোগুলো প্রাণ ঝরে গেল তার সুষ্ঠু তদন্ত হওয়া উচিত। বাংলাদেশ সরকার ও নেপালের সরকারের উচিত এক সঙ্গে বসে এর তদন্ত করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *